রাজশাহী কলেজে মঞ্চস্থ হলো আরণ্যক নাট্যদলের ‘রাঢ়াঙ’

রাজশাহী কলেজ বার্তা | | February 11, 2017 at 10:40 pm

রাজশাহী কলেজে মঞ্চস্থ হলো আরণ্যক নাট্যদলের রাঢ়াঙ

আরণ্যক নাট্যদলের দর্শকনন্দিত নাট্য প্রযোজনা ‘রাঢ়াঙ’এবার মঞ্চস্থ হলো উত্তরবঙ্গের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপিঠ রাজশাহী কলেজে। আজ ১১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় রাজশাহী কলেজ অডিটোরিয়াম এ মঞ্চস্থ হয়েছে নাটকটি।

মামুনুর রশীদ রচিত ও নিদের্শিত নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন মামুনুর রশীদ, তমালিকা কর্মকার সহ আরণ্যক নাট্যদলের আরো অনেকে।

এ নাটকের গল্প গড়ে উঠেছে সাঁওতালদের নিয়ে। ভারতীয় উপমহাদেশে ঔপনিবেশিক ব্রিটিশের বিরুদ্ধে যারা প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধে রুখে দাঁড়ায় তারা সাঁওতাল। ১৭৮৪ সালে হাজারীবাগ জেলার কালেক্টর ক্লিভল্যান্ডকে হত্যার মাধ্যমে এর সূত্রপাত। তারপর ১৮৫৫ সালে সিধু, কানু, চাঁদ ও ভৈরবের নেতৃত্বে গড়ে ওঠে ‘সাঁওতাল বিদ্রোহ’ নামে এক ঐতিহাসিক প্রতিরোধ, যার পরবর্তী অধ্যায় সর্বভারতীয় প্রতিরোধ ও ১৮৫৭ সালের সিপাহি বিদ্রোহ। এ অঞ্চলের আদিবাসীদের ভূমির অধিকারের লড়াইয়ে সাঁওতালদের অবদান একটি কিংবদন্তিসম উপাখ্যান।

‘রাঢাঙ’ এর প্রথম মঞ্চায়ন হয় ২০০৪ সালে। এরপর ভারত ও দক্ষিণ কোরিয়ার বেশকটি নাট্যোৎসবে অংশ নিয়েছে আরণ্যকের ‘রাঢ়াঙ’। এর শততম প্রদর্শনী মঞ্চস্থ হয় ২০১১ সালে।

নাটকের গল্পে দেখা যায় তত্কালীন তানোর নামের এক লোকালয়ে সাঁওতালরা বাস করে। সেখানে তাদের কোনো নিজস্ব জমি নেই। পরের জমিতে চাষ করেই জীবিকা নির্বাহ করতে হয় তাদের। সেখান থেকে বিশ্বম্বর নামক এক জোতদারের প্রলোভনে তারা তানোর ছেড়ে পাড়ি জমায় ভীমপুরে। জমি পাওয়ার আশায় তারা ছেড়ে যায় তাদের দীর্ঘদিনের বসতভিটা।

কিন্তু ভীমপুরে গিয়েও তারা জমির কাগজ পায় না। জমি না দিলেও তাদের দিয়ে ঠিকই ফসল ফলিয়ে বড় অংশ জোতদার নিয়ে যায়। ধীরে ধীরে ক্ষোভ বাড়তে থাকে সাঁওতালদের মনে। এদিকে ভীমপুরের স্থানীয় আরেক জোতদার হাতেম আলী তার এলাকায় সাঁওতালদের মেনে নিতে পারেন না। বিভিন্নভাবে সাঁওতালদের উচ্ছেদ করার চেষ্টা চালান। এমনকি সাঁওতালদের পেছনে পুলিশও লেলিয়ে দেন।

এরই মধ্যে বিশ্বম্বরের মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পর বিশ্বম্বরের ভাইয়ের ছেলে গদাই হাতেম আলীর সঙ্গে মিলে সাঁওতালদের শোষণের ফন্দি আঁটেন। কিন্তু সাঁওতালরা যখন দেখে যে, হাতেম ও গদাইয়ের লোকজন না জানিয়ে তাদের ঘামে ফলানো ফসল কেটে নিয়ে যাচ্ছে তখন তারা বিদ্রোহে ফেটে পড়ে।

সাঁওতাল যুবক আলফ্রেড সরেনের নেতৃত্বে হাতেম ও গদাইয়ের সাঙ্গপাঙ্গদের সঙ্গে লড়াই বাধে। লড়াইয়ে করুণ পরাজয় ঘটে সাঁওতালদের। স্বপ্নভঙ্গ হয় সাঁওতালদের। এভাবেই এগিয়ে যায় নাটকটির কাহিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.