শিক্ষার্থীরা নয় বরং শিক্ষকরাই বেশি তরুণ!

রাজশাহী কলেজ বার্তা | | May 21, 2017 at 9:02 pm

সুন্দর করে সামিয়ানা টাঙগানো তার নিচে মঞ্চ। মঞ্চে উপবিষ্ট মডারেটর তার দু’পাশে পক্ষ এবং বিপক্ষ দুটি দল বসে আছে। আর সামনেই বসে আছেন শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শত শত শিক্ষার্থী। বলছিলাম রাজশাহী কলেজে অনুষ্ঠিত মধু মাস, রম্য বিতর্ক প্রতিযোগিতার কথা।

রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় রাজশাহী কলেজের শহীদ কামারুজ্জামান ভবনের সামনে শুরু হয় মধু মাস, ছাত্র শিক্ষক রম্য বিতর্ক প্রতিযোগিতা। বিতর্কের বিষয় ছিল, রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থীদের তুলনায় শিক্ষকরাই বেশি তরুণ।

বিষয়ের পক্ষে ছাত্ররা এবং বিপক্ষে শিক্ষকরা অবস্থান করেন। পক্ষের দলে বক্তারা ছিলেন, ইংরেজি বিভাগের তরিকুল ইসলাম তারেক, রসায়ন বিভাগের বাপ্পারাজ রাজু  এবং উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেনীর মাহবুব মুর্শেদ হৃদয়। বিপক্ষ দলে ছিলেন কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর আল ফারুক চৌধুরী , ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. সাম্যসাথী ভৌমিক এবং বাংলা বিভাগের প্রভাষক নূরজাহান বেগম।

বিতর্ক প্রতিযোগিতায় মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান।

দু’পক্ষের বক্তব্য ও যুক্তিখন্ডন শেষে মডারেটর তার বিশ্লেষণে বলেন, ‘তারুণ্যকে বয়সের ফ্রেমে বাধা যায়না। দু’দলই সুন্দরভাবে নিজেদের যুক্তি উপস্থাপন করেছেন। কিন্তুু আমি বলতে চায় আমার কলেজের শিক্ষার্থীরা যেমন তরুণ, শিক্ষকরাও তেমনি কাজে-কর্মে এবং জীবন উদ্দীপনায় তরুণ।

প্রতিযোগিতায় বিচারকমন্ডলীর দায়িত্ব পালন করেন প্রতিটি বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণ। দু’পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে বিচারকগণ তাদের ভোট প্রদান করেন। বিষয়ের পক্ষের দল ৬ টি ভোট পায় এবং বিপক্ষ দল ১১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়। শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয়েছেন বিপক্ষ দলের ড. সাম্যসাথী ভৌমিক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.