এবার রাজশাহী কলেজে শিক্ষার্থীদের ব্যতিক্রমী ‘মানব মানচিত্র’

0
225

এতে অংশ নেন কলেজের একাদশ-দ্বাদশ ও অনার্সের ৯৩৬ জন শিক্ষার্থী একাত্তরের শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে লাল-সবুজ প্ল্যাকার্ডের ব্যবহারে বিশাল এ মানব মানচিত্র রচনা করেন। কলেজের পরীক্ষার্থীরা মানব মানচিত্রের জন্য ১৭ নভেম্বর থেকে দীর্ঘ এক মাসের পরিকল্পনা এবং টিম ওয়ার্কের মাধ্যমে এ উদ্যোগ সফল হয়। আর এ উদ্যোগে আরো পঞ্চাশ জন শিক্ষার্থী ভলেনটারির দায়িত্ব পালন করেন।

এই মানব মানচিত্র প্রায় ১৫ মিনিট স্থায়ী ছিলো বলে জানা যায়। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি সংবলিত বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ মানচিত্র বলেও দাবি কলেজের শিক্ষার্থীদের।

মানব মানচিত্রে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী বাদশা বুলবুল, মাইশা, জুয়াইরিয়া, অর্ক, কিরণ জানান, প্রিয় দেশের জন্য একটি মানচিত্র পাওয়ার তীব্র আকাঙ্খায় এদেশের মানুষ বুকের তাজা রক্ত দিয়েছেন। চিরতরে পঙ্গুত্ব বরণ করেছেন অনেকেই।

বহু ত্যাগ ও বিনিময়ের পর দেশটা স্বাধীন হয়েছে। এসব ভাবনা থেকেই বিদায় মুহূর্তে রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ স্যারের সার্বিক সহযোগীতায় একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী মিলে মানব মানচিত্র তৈরি করে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি সংবলিত বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ মানচিত্র

তাঁরা আরো জানান, গত একুশে ফেবরুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কলেজের মাঠে তারা ব্যতিক্রমী ‘মানব শহীদ মিনার’ তৈরি করেছিলেন। আগের বছর তাদের জ্যেষ্ঠ শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে লাল-সবুজ রঙের ‘মানব পতাকা’ করেছিলেন। কাজটি ভালোভাবে শেষ করতে পেরে তাদের ভীষণ ভালো লেগেছে বলেও জানান শিক্ষার্থীরা।

মানচিত্র তৈরির কৌশল সম্পর্কে জানাতে গিয়ে আশানুল হক কিরণ বলেন, প্রথমে মাঠে চুন ছিটিয়ে বাংলাদেশের মানচিত্রের আদল তৈরি করা হয়। এরপর চুনের ওপর ৯৩৬ জন শিক্ষার্থী দাঁড়িয়ে মানব মানচিত্রে অংশ নেয়।

রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ মহা. হবিবুর রহমান বলেন, ‘এটি বিশ্বের প্রথম বা সবচেয়ে বড় মানব মানচিত্র কি-না- সে বিষয়ে আমার ব্যক্তিগত কেনো বক্তব্য নেই, এটি শিক্ষার্থীদের দাবি। তবে এটি দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে পারি যে, মানব মানচিত্র তৈরি করে কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের দেশপ্রেম ও সৃজনশীলতার পরিচয় দিয়েছে’।

তিনি আরো বলেন, ‘গত বছর আমরা মানব পতাকা তৈরি করেছিলাম। এ বছর মানব শহীদ মিনার ও মানব মানচিত্র করা হলো। শিক্ষার্থীদের এ উদ্যোগ ব্যতিক্রমী বলে মনে হয়েছে। এমন উদ্যোগের ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে দেশপ্রেমের চেতনা ছড়িয়ে পড়বে বলেও মনে করেন তিনি।

মানব মানচিত্র তৈরিতে সার্বিক দিক নির্দেশনা ও সহযোগিতায় ছিলেন কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহযোগি অধ্যাপক ড. সাম্য সাথী ভৌমিক ও পদার্থবিজ্ঞানের প্রভাষক বারিক মৃধা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here