মাস্টার্স শেষবর্ষের পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা

0
202

দেশের শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ রাজশাহী কলেজের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের উদ্যোগে মাস্টার্স শেষ বর্ষ (২০১৪-২০১৫) পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কলেজ মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠান শুরুর পূর্বে কলেজের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সামনে থেকে একটি আনান্দ র‌্যালি বের হয়।

বিদায়ী শিক্ষার্থীরা বর-কনে, কৃষক-কৃষাণী ও বাউল সেজে টমটমে চেঁপে র‌্যালিতে অংশ নেয়। র‌্যালিটি কলেজের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে মিলনায়তনের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে কলেজ মিলনায়তনের আলোচনা সভা এবং বিদায়ী শিক্ষার্থীদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন প্রধান অতিথি অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান।

পরীক্ষার্থীদের উজ্জ্বল ভবিষ্যত কামনা করে কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান বলেন, রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থীরা সকল ক্ষেত্রে সফলতা অর্জন করে দেশ ও জাতির উন্নয়নের কাজে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। তার ধারাবাহিকতায় আজকের মাস্টার্স শেষ বর্ষের পরীক্ষার্থীরা সফলতা অর্জন করে দেশের মধ্যে রাজশাহী কলেজের সুনাম আরও বৃদ্ধি করার প্রত্যাশা করেন।

উপাধ্যক্ষ প্রফেসর আল-ফারুক চৌধুরী বলেন, আজ তোমাদের আরো একটি আনান্দের সংবাদ দিচ্ছি যে, জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৮ এর বিভাগীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ কলেজ হিসেবে আবারো স্বীকৃতি পেয়েছে রাজশাহী কলেজ। শ্রেষ্ঠ শিক্ষক ও শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধানও রাজশাহী কলেজ থেকেই হয়েছে। নিশ্চয় এই অর্জন তোমাদের শিক্ষা ও কর্ম ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা যোগ করেবে।

সভাপতির বক্তব্যে ড.নাজনীন সুলতানা বলেন, আজকে বিদায়ের দিন একটা কষ্টের দিন কিন্তু আজকে একটা আনান্দেরও দিন। এই আনান্দ এই কষ্ট সবই আমাদের জীবনের এক একটা অংশ। সন্তানদের বিদায় আসলেই কষ্টের। কিন্তু কষ্টের পাশা-পাশি আমার সুখও আছে। কারণ আমার সাড়ে তিন‘শ সন্তানকে যোগ্য করে গড়ে তুলে পাঠাতে পারছি। এটা একজন শিক্ষক হিসেবে, একজন অভিভাবক হিসেবে, একজন মা হিসেবে আমার কাছে বড় পাওয়া।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, তোমরা এক একটা রাজশাহী কলেজ। তোমরা রাজশাহী কলেজকে শুধু দেশে নয় সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দাও। তোমরা সাড়ে তিন‘শ জন রাজশাহী কলেজকে প্রতিনিধিত্ব করবে।

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড.নাজনীন সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলেজ উপাধ্যক্ষ প্রফেসর আল-ফারুক চৌধুরী।

এছাড়াও এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, সমাজবিজ্ঞানের সহযোগী অধ্যাপক ড. আব্দুল মালেক সরকার, ড. ফিরোজুল ইসলাম, সহকারী অধ্যাপক, মুহাম্মাদ জাকির আল ফারুকী, ড. রোকনুজ্জামান সিদ্দিকী. রফিকুল ইসলাম, প্রভাষক, রোজিনা আফরোজ, সুলতানা জহুরা, সাদিকুল ইসলাম শিমুল প্রমুখ।

বিদায়ী সংবর্ধনা শেষে শিক্ষার্থীরা মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্টানের আয়োজন করে। এ অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক ছিলেন সমাজবিজ্ঞানের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহম্মাদ আলমগীর কবীর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here